ঢাকা, ২৩ জুলাই, ২০২৪ || ৮ শ্রাবণ ১৪৩১
Breaking:
আন্দোলনকে ভিন্নখাতে নিতে যারা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত তারা শিগগিরই গ্রেফতার হবে : ডিবি      অশুভ অপশক্তি প্রতিহত করতে নেতাকর্মীদের অবস্থান নেওয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন ওবায়দুল কাদের     
Mukto Alo24 :: মুক্ত আলোর পথে সত্যের সন্ধানে
সর্বশেষ:
  ঢাবি অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা : শিক্ষার্থীদের হল খালি করার নির্দেশ        কোটা সংস্কার আন্দোলনে প্রাণহানি ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্ত করা হবে : প্রধানমন্ত্রী        জাতির উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের পূর্ণ বিবরণ     
২০২৮

সম্মত কোরিয়া বাংলাদেশের রপ্তানিযোগ্য পণ্য সংখ্যা বাড়াতে:বাণিজ্যমন্ত্রী

অনলাইন

প্রকাশিত: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৪   আপডেট: ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৪

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ

দক্ষিণ কোরিয়ায় সফররত বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ এ কথা জানিয়েছেনবৃদ্ধি পেতে যাচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়ায় বাংলাদেশের রপ্তানিযোগ্য পণ্যসংখ্যা ।তিনি বলেছেন, কোরিয়ায় বাংলাদেশের রপ্তানিযোগ্য পণ্যসংখ্যা বৃদ্ধি করতে সেদেশের সরকার সম্মত হয়েছে। এর ফলে কোরিয়ায় বাংলাদেশী পণ্য রপ্তানি বৃদ্ধি পাবে। 

কোরিয়া বাংলাদেশ থেকে আরো বেশি পরিমান জনশক্তি আমদানি করতেও আগ্রহী উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, কোরিয়া বাংলাদেশে আরো বেশি পরিমান বিনিয়োগ করার আগ্রহ প্রকাশ করেছে।তোফায়েল আহমেদ আজ সিউলে দক্ষিণ কোরিয়ার ট্রেড, ইন্ডাষ্ট্রি ও এনার্জি বিষয়ক ভারপ্রাপ্ত মন্ত্রী মো জায়ে-দো এর সঙ্গে বৈঠক করেন। এ সময় কোরিয়ান মন্ত্রী এ আগ্রহের কথা জানান বলে বাণিজ্য মন্ত্রী উল্লেখ করেন। 

আজ ঢাকায় প্রাপ্ত এক তথ্য বিবরণীতে এ কথা বলা হয়।

তোফায়েল আহমেদ বলেন,এই মহুর্তে বাংলাদেশে ৭২টি প্রতিষ্ঠানে ৬০০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার কোরিয়ান বিনিয়োগ রয়েছে। কোরিয়া বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্য বাড়ানোরও আগ্রহ প্রকাশ করেছে।তিনি বলেন, কোরিয়ার বাজারে বাংলাদেশী পণ্যের বিপুল চাহিদা বয়েছে। বাংলাদেশের অনুরোধের প্রেক্ষিতে কোরিয়া আরো বেশি সংখ্যক পণ্য আমদানি করতে সম্মত হয়েছে। 

গত অর্থ বছরে কোরিয়া বাংলাদেশ থেকে ৩৪৪ দশমিক ৮১ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সমমূল্যের পণ্য আমদানি করে। একই সময়ে বাংলাদেশ কোরিয়া থেকে আমদানি করে ১১৯৯ দশমিক ২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার সমমূল্যের পণ্য। এসময় বাংলাদেশের বাণিজ্য ঘাটতির পরিমান দাড়ায় ৮৫৪ দশমিক ৩৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। কোরিয়ার বাজারে বাংলাদেশী পণ্য রপ্তানি বৃদ্ধি পেলে উভয় দেশের মধ্যে বাণিজ্য ঘাটতি বহুলাংশে হ্রাস পাবে।

দক্ষিণ কোরিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এনামূল কবীর এবং সফররত বাংলাদেশ রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা কর্তৃপক্ষের (বেপজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মোহাম্মদ হাবিবুর রহমান খান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন
অর্থ ও বাণিজ্য বিভাগের সর্বাধিক পঠিত