ঢাকা, ১৩ নভেম্বর, ২০১৯ || ২৮ কার্তিক ১৪২৬
Breaking:
Mukto Alo24 :: মুক্ত আলোর পথে সত্যের সন্ধানে
সর্বশেষ:
৮৬৯

গুগল নারী ও সংখ্যালঘুদের সুযোগ দেবে

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১৮ মে ২০১৪   আপডেট: ৫ জুন ২০১৪

গুগল নারী ও সংখ্যালঘুদের সুযোগ দেবে

গুগল নারী ও সংখ্যালঘুদের সুযোগ দেবে

মার্কিন কর্তৃপক্ষের চাপে গুগল এবার কর্মী সংক্রান্ত তথ্যও প্রকাশ করতে চলেছে।ক্যালিফোর্নিয়ার সিলিকন ভ্যালিতে নারী, কৃষ্ণাঙ্গ, ল্যাটিনো, হিসপ্যানিক, বিদেশি বংশোদ্ভূত সহ সংখ্যালঘুদের অনুপাত বাড়ানোর অঙ্গীকার করেছে গুগল। গোটা বিশ্বে সবার হাঁড়ির খবর প্রকাশ্যে নিয়ে আসে গুগল। ইমেইল থেকে শুরু করে সার্চ ইঞ্জিনে দেওয়া শব্দ বিশ্লেষণ করে আমাদের সম্পর্কে অনেক খবর ছেঁকে নেওয়া যায়। সেই তথ্যের ভিত্তিতে প্রত্যেকের জন্য উপযুক্ত বিজ্ঞাপন দেখানো যায়। ফলে বিজ্ঞাপন বাবদ বেশ আয় হয় তাদের।কিন্তু গুগলের হাঁড়ির খবর দেবে কে? কম্পানি হিসেবে গুগল তার কর্মীদের প্রতি কেমন আচরণ করে, রাষ্ট্রীয় নিয়মকানুন মেনে চলে কি না- এ সব তথ্য মাঝেমধ্যে বেরিয়ে আসে। যেমন এবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কর্মক্ষেত্রে নারী-পুরুষ অনুপাতের ওপর নজর রাখার কাজ শুরু হয়েছে। জাতি-ধর্ম-বর্ণের মতো কারণে অন্যান্য বৈষম্যও ঘটছে কি না, সেই বিষয়টিও খতিয়ে দেখতে চায় কর্তৃপক্ষ।ফলে এই প্রথম গুগলকেও কর্মী সংক্রান্ত তথ্য প্রকাশ করতে হবে। কম্পানির `পাবলিক পলিসি` কর্মকর্তা ডেভিড ড্রামন্ড বলেছেন, সিলিকন ভ্যালির অনেক কম্পানি এতকাল এই তথ্য প্রকাশ করতে চায়নি, যা একটা ভুল সিদ্ধান্ত ছিল।গুগলের মত বদলানোর পেছনে অবশ্য আরেক জনেরও অবদান রয়েছে৷ তিনি হলেন অ্যামেরিকার বিখ্যাত নাগরিক অধিকার নেতা রেভারেন্ড জেসি জ্যাকসন৷ গুগলের বাৎসরিক সভায় তিনি তাঁর ভাষণে আরও আফ্রিকান-অ্যামেরিকান, ল্যাটিনো ও নারীদের নিয়োগ করার ডাক দেন। তিনি স্বচ্ছতার জন্য গুগলের প্রশংসাও করেন।সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী সিলিকন ভ্যালি তথা গোটা দেশে প্রায় ৭ শতাংশ কর্মী আফ্রিকান-অ্যামেরিকান বা ল্যাটিনো। জনসংখ্যায় কৃষ্ণাঙ্গ ও হিসপ্যানিকদের অনুপাত যথাক্রমে ১৩.১ ও ১৬.৯ শতাংশ। প্রযুক্তি কম্পানিগুলোতে নারী কর্মীর সংখ্যা যথেষ্ট বেশি হলেও উঁচু পদে তাঁদের বিশেষ দেখা যায় না।এই প্রবণতা বদলাতে গুগল আরো সক্রিয় হতে চায়। কম্পানির প্রধান এরিক স্মিট বলেছেন, পরিচালকমণ্ডলীতে নারী ও সংখ্যালঘু প্রার্থীদের সংখ্যা বাড়ানোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে। উল্লেখ্য, এই মুহূর্তে গুগলের ১০ সদস্যের বোর্ডে মাত্র তিনজন নারী রয়েছেন। রয়েছেন এক ভারতীয় বংশোদ্ভূত সদস্যও। সূত্র : ডি ডাব্লিউ 

 

 

তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত