ঢাকা, ২২ নভেম্বর, ২০১৯ || ৮ অগ্রাহায়ণ ১৪২৬
Breaking:
Mukto Alo24 :: মুক্ত আলোর পথে সত্যের সন্ধানে
সর্বশেষ:
১২১৩

বিচার চাইলেন মেয়ে খালেদ মোশাররফ হত্যার

অনলাইন

প্রকাশিত: ২২ জুন ২০১৪   আপডেট: ২৩ জুন ২০১৪

সংসদ সদস্য মাহজাবিন।

সংসদ সদস্য মাহজাবিন।

মেয়ে সংসদ সদস্য মাহজাবিন,মুক্তিযুদ্ধে কে ফোর্সের অধিনায়ক মেজর জেনারেল খালেদ মোশাররফ বীরোত্তম হত্যাকাণ্ডের তদন্ত ও বিচার দাবি করেছেন।আজ রবিবার জাতীয় সংসদে ২০১৪-১৫ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে মাহজাবিন খালেদ এ দাবি করেন। তিনি বলেন, ৭৫ এ বঙ্গবন্ধু হত্যার ষড়যন্ত্রের সঙ্গে যুক্ত ছিল বলেই খুনি মোশতাক জিয়াউর রহমানকে সেনাপ্রধান করেছিলেন। আমার দাদি বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার চেয়ে প্রতিবাদ করেছিলেন বলেই কি আমার বাবাকে হত্যা করা হয়েছে?মুক্তিযুদ্ধের সময় খালেদ মোশাররফ পাকিস্তানি দখলদার বাহিনীর সঙ্গে সম্মুখযুদ্ধে আহত হয়েছিলেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্টের পর বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের সমর্থনে প্রতিষ্ঠিত সরকারকে ৩ নভেম্বর উৎখাত করেছিলেন। কিন্তু ৭ নভেম্বর পাল্টা এক অভ্যুত্থানে তিনি নিহত হন। বঙ্গবন্ধু হত্যার পর নিজের পরিবারের দুর্দশার কথা তুলে ধরে মাহজাবিন তার পরিবারের দুর্দশার জন্য বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানকে দায়ী করেন।সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য মাহজাবিন বলেন, জিয়াউর রহমানের মত তার স্ত্রীও আমাদের পরিবারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছেন। সরকারের পক্ষ থেকে আমার মাকে যে বাড়ি দেয়া হয়েছিল সেখান থেকে আমাদের উচ্ছেদের ষড়যন্ত্র করেছেন বেগম জিয়া। স্বামীর মত তিনিও প্রচেষ্টা করেছেন। খালেদা জিয়ার প্রতি ইঙ্গিত করে তিনি বলেন, যার স্বামী একটি ফোর্সের নেতৃত্বে ছিল, তিনি ক্যান্টনমেন্টে আয়েসি জীবন-যাপন করছিলেন। অথচ তাকে নিয়ে পাকিস্তানি বাহিনী বিব্রত হয়নি। যেসব মুক্তিযোদ্ধারা খালেদা জিয়াকে ভারত নিয়ে যেতে বলেছিল, তাদেরকে তিনি পাকিস্তানি বাহিনীর কাছে ধরিয়ে দেয়ার হুমকি দিয়েছিলেন।

পাকিস্তানি বাহিনীর সঙ্গে বিশেষ সম্পর্কের কারণে জিয়াউর রহমান খালেদা জিয়াকে ঘরে তুলতে চাননি। বঙ্গবন্ধুর হস্তক্ষেপে জিয়া তাকে মেনে নেন। প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে মাহজাবিন বলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার হয়েছে। একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের বিচার চলছে। আমি আমার বাবাসহ ৭৫ পরবর্তী সকল মুক্তিযোদ্ধা এবং মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের মানুষদের হত্যার বিচার চাই।

 

 

 

 

 

আরও পড়ুন
রাজনীতি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত