ঢাকা, ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ || ৬ ফাল্গুন ১৪২৬
Breaking:
রাষ্ট্রপতির জনগণের পাশে থাকতে সাংসদদের প্রতি আহ্বান      ‘সোনার বাংলা’ থেকে শেখা বুদ্ধিমানের কাজই হবে:স্বাতি নারায়ণ      কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সভা আগামী ২০ ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার      মুজিববর্ষ ‘বাঙলা সম্মিলন’ আগামী ২০-২৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকা ও টুঙ্গীপাড়ায়     
Mukto Alo24 :: মুক্ত আলোর পথে সত্যের সন্ধানে
সর্বশেষ:
  ১৪ দলীয় জোটের সিনিয়র নেতা-মন্ত্রীরা বলেছেন, বিএনপি-জামায়াতের ঘাড়ে সওয়ার হয়ে ড. কামাল হোসেনরা রাজনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত কথাবার্তা বলে জনগণকে বিভ্রান্ত করতে চাইছে। পাকিস্তানের এসব পেতাত্মারা বাস্তবে জনবিচ্ছিন্ন, এদের পায়ের তলায় কোন মাটি নেই।        খালেদার প্যারোল ঘুরছে মুখে মুখে, কেউ আবেদন করেনি:স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী        মেট্রোরেলে চড়ানো শেখাতে নমুনা কোচ ঢাকায়        মন্ত্রিসভায় অনুমোদন বাংলাদেশ শিশু হাসপাতাল ও ইনস্টিটিউট আইনের খসড়া     
১৮৭৩

কাবা শরিফ ছিল ছায়ামুক্ত আজ মধ্যাহ্নে

অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ২৮ মে ২০১৪   আপডেট: ১০ জুন ২০১৪

ফাইল ছবি।

ফাইল ছবি।

পবিত্র কাবা শরিফের সরাসরি উপরে অবস্থান করে সূর্য।আজ ২৮ মে দুপুরে মক্কার বহু মানুষ এ ঘটনা প্রত্যক্ষ করে। অনেকেই এ ঘটনার ভিডিও ইউটিউবে পোস্ট করেছেন। জেদ্দা অ্যাস্ট্রোনোমিক্যাল সোসাইটি এক বিবৃতিতে আগেই সূর্য সরাসরি উপরে আসার তথ্য জানিয়েছিল।বাংলাদেশের স্থানীয় সময় অনুযায়ী দুপুর ৩টা ১৮ মিনিটে ঘটেছে এ ঘটনা। এ সময় সূর্যের কেন্দ্রবিন্দুটি এই কাবার ঠিক উপরে উঠে আসে। ফলে আজ মধ্যাহ্নে কাবা শরীফের কোনো ছায়া ছিল না। তবে এ সময় সূর্যের দিকে খালি চোখে তাকাতে নিষেধ করেছিলেন বিজ্ঞানীরা।এমন ঘটনা ঘটার কথা মহাকাশ বিজ্ঞানীরা আগেই জানিয়েছিলেন। মক্কা নগরীতে স্থানীয় সময় বুধবার ভোর ৫টা ৩৮ মিনিটে সূর্যোদয় হয়। কাবার উত্তর-পূর্ব দিক থেকে সূর্য ধীরে ধীরে উপরে উঠতে শুরু করে এবং দুপুর ১২টা ১৮ মিনিটে তা ঠিক কাবা শরিফের মাথায় উঠে আসে।

এ কারণে সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য হলেও পবিত্র এই ঘরের কোনো দিকে কোনো ছায়া ছিল না। কাবা শরিফের জন্য সূর্যের এই অবস্থানকে ছায়াশূন্য (জিরো শ্যাডো) অবস্থা বলেই চিহ্নিত করেন মহাকাশ বিজ্ঞানীরা। আর বছরে অন্তত দুইবার পবিত্র মক্কা নগরীর ক্ষেত্রে ঘটনাটি ঘটে।গবেষকরা জানান, পবিত্র কাবাঘরটি বিষুবরেখা ও কর্কটক্রান্তির মাঝখানে অবস্থিত হওয়ার কারণেই এমনটা ঘটে। ২৮ মে ছাড়া প্রতি বছর ১৬ জুলাই তারিখেও একই ঘটনা ঘটে বলে জানান তারা।পৃথিবীর অক্ষরেখায় সূর্য ২৩.৫ ডিগ্রি কৌণিক অবস্থান নিয়ে বিষুবরেখার উত্তর ও দক্ষিণ দিকে ঘুরতে থাকে। এভাবে একবার উত্তর গোলার্ধে একবার দক্ষিণ গোলার্ধে যায়। আর এই আসা যাওয়ার পথে বছরে দুইবার সরাসরি উপরে অবস্থান নিয়ে পবিত্র কাবা শরিফকে ছায়াশূন্য করে দেয়।

সূত্র : আরব নিউজ

আরও পড়ুন
শিক্ষা ও গবেষণা বিভাগের সর্বাধিক পঠিত