ঢাকা, ২০ অক্টোবর, ২০১৯ || ৪ কার্তিক ১৪২৬
Breaking:
Mukto Alo24 :: মুক্ত আলোর পথে সত্যের সন্ধানে
সর্বশেষ:
৭৯০

ভার্চুয়াল নারী কর্টানা ফেসবুক-টুইটার থেকে তথ্য নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করছে

অনলাইন

প্রকাশিত: ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৪  

মাইক্রোসফটের ভার্চুয়াল অ্যাসিস্টেন্ট কর্টানা

মাইক্রোসফটের ভার্চুয়াল অ্যাসিস্টেন্ট কর্টানা

মাইক্রোসফটের ভার্চুয়াল অ্যাসিস্টেন্ট কর্টানা গেলো বিশ্বকাপ ফুটবলে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে । এই ভার্চুয়াল নারী বিশ্বকাপের নক আউট পর্বে ১৬টি খেলার মধ্যে ১৫টি সম্পর্কে ভবিষ্যদ্বাণী করতে পেরেছে। এখন কর্টানা আমেরিকার বিভিন্ন খেলা ও এনএফএল সম্পর্কেও তাক লাগানো আগাম বার্তা দিচ্ছে। আসলে এই নারী নাকি গোটা বিশ্বের ফেসবুক ও টুইটার ব্যবহারকারীর বিভিন্ন মন্তব্য নিয়ে সেখান থেকেই নিজের বার্তা তৈরি করছে।
সর্বসম্প্রতি এনএফএল সম্পর্কে বার্তা দিতে কর্টানাকে নিয়ে কাজ করেছে মাইক্রোসফটের বিং টিম। আপনি যখন `এনএফএল প্রেডিকশন` লিখে সার্চ দেবেন তখন বিং দলের জয়ী হওয়ার সম্ভাবনা বিচার করে আপনাকে ভবিষ্যত বাণী দেবে।
এনএফএল বিষয়ে মন্তব্য করতে কর্টানার যে সংস্করণটি করা হয়েছে, তাতে একটি খেলার যাবতীয় বিষয়ের তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করা হয়েছে। অতীতের খেলার ফলাফল, বাড়ি থেকে মাঠ পর্যন্ত যাওয়ার সময় রাস্তা-ঘাটের অবস্থা, মাঠের ঘাসের অবস্থা, আবহাওয়া, দলের বর্তমান অবস্থা ইত্যাদি নানা সূক্ষ্ম বিচার করা হয়। তবে বিং এবার নতুন একটি শর্ত জুড়ে দিয়েছে যা কখনো করা হয়নি। তা হলো, মানুষের আবেগ। আর এটি করা সম্ভব হয়েছে ফেসবুক ও টুইটারের লক্ষ-কোটি ব্যবহারকারীর কারণে। মানুষের ধারণা ও মন্তব্য যাচাই করতে কর্টানা তথ্য-উপাত্তের পাহাড় নিয়ে কাজ করছে। সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় হলো, কর্টানার বিবেচনা সঠিক পথে এগোচ্ছে।
একামাত্র মানুষের অংশগ্রহণের ওপর ভিত্তি করেই অন্যান্য সম্ভাবনার শর্ত প্রভাবিত হতে পারে। মানবিক আবেদনের মাধ্যমে খেলা অন্যান্য শর্ত কীভাবে প্রভাবিত হতে পারে তা সঠিকভাবে বিশ্লেষণ করছে ভার্চুয়াল এই নারী।
এনএফএল এর দ্বিতীয় সপ্তাহে বাল্টিমোর র‍্যাভেনস খেলেছে পিটরসবার্গ স্টিলারস এর সঙ্গে। ওই খেলার ঠিক আগের দিন র‍্যাভেনসের খেলোয়াড় রে রাইসকে বাদ দেওয়ার পর ভক্তদের মন-মানসিকতা কেমন হয়েছিল তা বিশ্লেষণ করে বিং এবং এটাকেই তাদের ভবিষ্যত বাণীর গোপন অস্ত্র হিসেবে কাজে লাগায়।

 

কিন্তু ভুল হয় তাদের। স্টিলারসকে তারা জনপ্রিয়তার ওপরে (৫৯.৮ শতাংশ) রাখে। খেলায় বাল্টিমোর ২৬-৬ স্কোরে জিতে যায়। কিন্তু অন্যান্য হিসেবে বেশ কাছাকাছি ছিল কর্টানা।
মূলত মাইক্রোসফটের কর্টানা `আমেরিকান আইডল` এবং `দ্য ভয়েস` এর মতো অনুষ্ঠানের আগাম ফলাফল দিতে পারবে কিনা তা নিয়ে গবেষণা শুরু করে বিং। এই খাতে চমকপ্রদ সফলতার পরই তারা আরো  বড় মাপের ও জটিল ক্ষেত্র ক্রীড়াতে প্রবেশ করেছে।
আসল চমকটা আসে বিশ্বকাপ ফুটবলের জার্মানি বনাম ব্রাজিলের খেলায়। অন্য সব পরিসংখ্যানে ব্রাজিল ছিল এগিয়ে। কিন্তু কর্টানার বিবেচনায় জার্মানির নাম আসে। খেলার ফলাফল সবাই জানেন। এ ছাড়াও অনেকগুলো গুরুত্বপূর্ণ খেলায় সঠিক বার্তা দিয়েছিল কর্টানা। এই সফলতা অনেকের আগ্রহ কেড়েছে। তাই মাইক্রোসফট নিজেরাও যথেষ্ট আগ্রহী। তারা দেখতে চায়, আসলেই কী কর্টানাকে দিয়ে যাবতীয় বিষয় নিয়ে নিখুঁত ভবিষ্যত বাণী করা সম্ভব? সূত্র : বিজনেস ইনসাইডার

তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের সর্বাধিক পঠিত