ঢাকা, ১১ আগস্ট, ২০২২ || ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯
Breaking:
বীকন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড প্রতিষ্ঠানটির সকল কর্মকর্তা কর্মচারীদের বিনামূল্যে হেপাটাইটিস বি স্ক্রিনিং এবং ভ্যাক্সিনেশনের আয়োজন      নারীর রাজনৈতিক ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে উন্নয়নশীল বিশ্বে বাংলাদেশ রোল মডেল : স্পিকার      বঙ্গোপসাগরে মাছ ধরার ট্রলারডুবি, ১৩ জেলে নিখোঁজ      আগামীতে বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে সম্পর্ক আরো শক্তিশালী হবে      জ্বালানির দক্ষ ও সাশ্রয়ী ব্যবহার জ্বালানি নিরাপত্তায় কার্যকর অবদান রাখবে : তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী     
Mukto Alo24 :: মুক্ত আলোর পথে সত্যের সন্ধানে
সর্বশেষ:
  উপাত্ত সুরক্ষা আইনের খসড়ায় গণমাধ্যমকর্মীদের মতামতের সময় ১০ দিন রাখা হয়েছে        গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র ব্যবস্থাকে টিকিয়ে রাখা সকল রাজনৈতিক দলের সম্মিলিত দায়িত্ব : তথ্যমন্ত্রী        রাজনীতি থেকে বিএনপি’র বিদায় নেওয়ার সময় এসেছে : ওবায়দুল কাদের        প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সভা অনুষ্ঠিত     
৭৬৮

পাবনার বেড়া মডেল থানায় লকডাউন এর সপ্তম দিন

কবি মোঃসরোয়ার জাহান

প্রকাশিত: ৭ জুলাই ২০২১  

পাবনার বেড়া মডেল থানায় লকডাউন এর সপ্তম দিন

পাবনার বেড়া মডেল থানায় লকডাউন এর সপ্তম দিন



পাবনার বেড়া মডেল থানায় এবারের লকডাউন এর সপ্তম দিন পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের তৎপরতা ছিল বেশ চোখে পড়ার মতো। পুলিশ বাহিনীর পাশাপাশি সেনা সদস্যদের টহল ও দেখা গেছে।

 যেখানে আজ ৭ই জুলাই ২০২১,দেশে করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘন্টায় রেকর্ডসংখ্যক ২০১ জন মারা গেছেন। এদের মধ্যে পুরুষ ১১৯ ও নারী ৮২ জন।এ নিয়ে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ৫৯৩ জনে।এদিকে আজ নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১১ হাজার ১৬২ জন।

আজ শম্ভুপুর জামে মসজিদ সংলগ্ন লকডাউন এ পুলিশের এক চেকপোষ্টে সরেজমিনে প্রত্যক্ষ করতে গিয়ে আমি বেশ আশান্বিত হলাম। পুলিশ ভাইয়েরা প্রায় প্রত্যেকটি মাক্স বিহীন যাত্রীকে জিজ্ঞাসাবাদ করছেন এবং মাক্স পড়তে বাধ্য করছেন। এবংসেইসঙ্গে সচেতনতা মূলক পরামর্শ প্রদান করছেন। অনেক ক্ষেত্রে তাদেরকে জরিমানার আওতায় আনছেন।

কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে এত কিছুর পরেও কি আমরা করোনার লাগাম টেনে ধরতে পারছি? একটা সময় মফস্বল শহর বড় বেশি নিরাপদ ছিল। এখন সেখানে করোনার করাল থাবা থেকে রক্ষা পাচ্ছেনা গ্রামের নিরীহ মানুষগুলো। কিন্তু এই নিরহ মানুষগুলোকে সচেতন করার যথাসাধ্য চেষ্টা করছেন দেশের গণমাধ্যমগুলো।  ঠিক তেমনি সরকারের নিয়োজিত বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান জনগণকে সচেতন করছেন, কিন্তু সাধারন মানুষকে স্বাস্থ্যবিধি গুলো যথাযথভাবে পালন করাতে পারছেন কি?কিংবা আমরা সাধারণ জনগণ তা কি মানছি?কেউ কেউ আমরা আছি যে কভিড-১৯ করনা ভাইরাস কে বিশ্বাসই করি না।

আমি চেকপোস্টের সামনে বেশ কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে ছিলাম দেখলাম একটা ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধি বাইক চালিয়ে যাচ্ছেন। পুলিশ তার গতিরোধ করতে বললে,বলছে আমি ওষুধ কোম্পানির লোক। কিন্তু তার মুখে কোন মাক্স নেই।শুনে খুব দুঃখ পেলাম,পুলিশ  চেকপোস্ট এরমধ্যে এই লকডাউনে  একজন সচেতন নাগরিক কিভাবে মাক্স না পড়ে রাস্তায় বের হন?

সর্বোপরি শুধু এটুকুই বলবো আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সকলকে, তাদের দায়িত্ব পালনের জন্য আমাদের সাধারন জনগনের পক্ষ থেকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই।

সেইসঙ্গে সাধারন জনগন আমরা যারা আছি, আসুন এই কোন করোনা নামক অদৃশ্য জীবাণুর হাত থেকে আমাদের দেশের মানুষকে তথা সারা পৃথিবীর মানুষকে মুক্তির জন্য সবচেয়ে বড় প্রয়োজন আমাদের নিজের সচেতনতা সেইসঙ্গে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা।

তাহলে  আমাদের জীবনের গতি যেমন বাড়বে সেই সঙ্গে বাড়বে আমাদের মানব জীবনের উন্নয়নের গতি-ও। আমরা ফিরে পাব আমাদের সেই আগের উন্মুক্ত পৃথিবী। যেখানে প্রতিটি নাগরিক তার স্বাধীন সত্ত্বা মত জীবন যাপনের ফিরে আসবেন সেই প্রার্থনা করি মহান আল্লাহ্তালার কাছে।



মুক্তআলো২৪.কম